Planning and Estimating Required for Proper Implementation of the Project | প্রকল্পকে সঠিকভাবে বাস্তবায়নে প্রয়োজন পরিকল্পনা এবং প্রাক্কলন

 

পরিকল্পনা এবং প্রাক্কলন

 

পরিকল্পনা এবং প্রাক্কলন অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ন একটি বিষয়। পরিকল্পনার ইংরেজি শব্দ প্ল্যানিং আর

প্রাক্কলনের ইংরেজি হচ্ছে এস্টিমেটিং।  কোন প্রকল্পকে সুষ্টভাবে বাস্তবায়ন করতে একজন দক্ষ

পরিকল্পনাকারী ও প্রাক্কলনকারী আবশ্যক। পরিকল্পনা ও প্রাক্কলন এই শব্দ দুটিকে আমরা গভীর

ভাবে উপলব্ধি না করলেও  আমরা সবাই কিন্তু জীবন চলায় প্রতিনিয়ত পরিকল্পনা এবং প্রাক্কলন

করে থাকি। কোন একটি বিশেষ কাজকে যথাযথভাবে সম্পাদনের জন্য কাজ শুরুর পুর্বেই

কাজের সময়,স্থান, কাজের ধরন নির্ধারন সহ একটি কর্মধারা প্রণয়ন সহ একটি পরিপুর্ন নীল

নকশা তৈরি করাকেই পরিকল্পনা বলে থাকি। উক্ত কাজের জন্য প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ ভাবে ব্যায়িত

সম্ভাব্য খরচ নির্ধারন করাই হচ্ছে প্রাক্কলন ।

 

প্রয়োজন পরিকল্পনা

 

Planning

 

প্রতিটি বিশেষ কাজেই প্রয়োজন পরিকল্পনা এবং প্রাক্কলন।উদহরন স্বরুপ তুমি কোন একটি শিক্ষা

সফরের আয়োজন করবে সে ক্ষেত্রেও প্রয়োজন সুষ্ট পরিকল্পনা এবং প্রাক্কলন ।

 

সফরের তারিখ নির্ধারন ,স্থান নির্ধারন, খাবার সংগ্রহের জন্য ভাল রেস্টুরেন্ট নির্ধারন, যাতায়াতের

জন্য পরিবহন নির্ধারন এবং শিক্ষা সফরের জন্য ব্যানার তৈরি। চাহিদা অনুযায়ী স্বল্পদামে

শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ টি শার্ট সংগ্রহ এর জন্য ভাল প্রতিষ্ঠান বা কাপরের দোকান নির্ধারন,

অপ্রত্যাশিত খরচের আনুমানিক তালিকা তৈরি, যেমন চিকিৎসা, ঔষধ, দুর্ঘটনা ইত্যাদি। এছাড়া

অতিরিক্ত খাবার যেমন বাস ড্রাইভার সহ বিভিন্ন স্টাফদের জন্য। ইত্যাদি নিয়ে কিছু মিটিং করে,

কে কোন কাজ করার জন্য দায়িত্বপ্রাপ্ত হবে তা নির্ধারন  করে একটি পরিকল্পনা তৈরি করতে হয়।

অত:পর এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য আনুমানিক খরচ নির্ধারন করতে হবে। খরচ নির্ধারনের

এই বিষয়টিকে আমরা প্রাক্কলন বা এস্টিমেটিং বলি।

 

সুষ্ঠ পরিকল্পনা তৈরি করা না হলে কাজ অগোছালো থাকবে, এবং নানান প্রতিবন্ধকতা তৈরি হবে।

প্রয়োজনের সময় বিভিন্ন কাজ অসমাপ্ত থেকে যাবে।

 

অনুরুপ সুষ্ট প্রাক্কলন না হলে কাজ কিছুদুর এগিয়ে অর্থের অভাবে কাজটি থেমে যেতে পারে বা

বাধাপ্রাপ্ত হতে পারে। যথাসময়ে নিয়মতান্ত্রিকভাবে কাজ সম্পন্ন করতে একজন দক্ষ

পরিকল্পনাকারী এবং দক্ষ প্রাক্কলনকারী অত্যাবশ্যক।

 

সুষ্ট পরিকল্পনা অনুযায়ী বাস্তবায়িত একটি প্রকল্প দৃষ্টিনন্দন, দীর্ঘস্থায়ী, টেকসই এবং অর্থসাশ্রয়ী

হবে।যে কোন প্রকল্পের পরিকল্পনায় থাকতে হবে কাজের ক্রম বা ধাপ, ডিজাইন বা নকশা,

নির্ধারিত সময়, কাজের স্থান, প্রকল্পের অবস্থান, আবহাওয়া এবং জলবায়ুর তথ্য, যোগাযোগ

ব্যাবস্থা, প্রকল্পের জন্য প্রয়োজনীয় কাচামালের সহজলভ্যতার তথ্য, শ্রমিকের ধরন ইত্যাদি বিষয়।

একজন পরিকল্পনাকারীর এই সব কিছুই জানা আবশ্যক। পরিকল্পনাকারীকে অবশ্যই প্রকল্প

বিষয়ক আইনি বিষয়াদি সম্পর্কেও ভাল জ্ঞান রাখতে হবে।

 

পরিকল্পনাকারীকে হতে হবে বিচক্ষন। যথাযথভাবে কাজটি সম্পন্ন করতে কি কি প্রতিবন্ধকতা

তৈরি হতে পারে তার তালিকা প্রণয়ন এবং সম্ভাব্য সমাধান খুজে বের করে তার একটি পরিকল্পনা

প্রদান করার বিশেষ দক্ষতা থাকতে হবে একজন পরিকল্পনাকারীর। শীত গৃষ্ম বর্ষা কোন ঋতুতে

প্রকল্পের কাজের কোন অংশটুকু অনুকুল হবে, এবং কোন কাজটুকু করতে হবে তাও জানতে

হবে।

একজন দক্ষ পরিকল্পনাকারীর অভাবে একটি প্রকল্প মাঝ পথে নানান সমস্যার সম্মুখীন হতে

পারে, এমনকি প্রকল্প বন্ধও হয়ে যেতে পারে। আর যদি প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন করতেই হয় তবে

হয়ত তা হবে অত্যন্ত ব্যায়বহুল। সঠিক পরিকল্পনার অভাবে প্রকল্প পরিচালনাকারীকে গুনতে হবে

অনাকাঙ্ক্ষিত অতিরিক্ত টাকা।

 

সুষ্ঠ প্রাক্কলন

 

Estimating

 

প্রকল্পের পরিকল্পনার পাশাপাশি যদি সুষ্ঠ প্রাক্কলন না হয় তা হলে অর্থের অভাবে কাজ থেমে যেতে

পারে, অথবা কাজের গতি হবে মন্থর। অর্থের অভাবে অনেক সময় কাজের গুনগতমান হতে

পারে নিম্ন।

 

প্রাক্কলনকারীকে প্রকল্পে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন যন্ত্রপাতি, মেশিন, ও অন্যান্য মালামালের দাম জানতে

হবে। ক্যাটালগ এবং কোটেশন সম্পর্কে জ্ঞান রাখতে হতে। প্রকল্পে ব্যাবহৃত কাচামালের দরদাম

জানা থাকতে হবে। শ্রমিক আইন এবং শ্রমবাজার সম্পর্কে ধারনা থাকতে হবে। পরিবহন খরচ

সম্পর্কে জ্ঞান থাকতে হবে।

একটি প্রকল্প সম্পন্ন করতে যে মৌলিক খরচ হয় তা হলো মালামালের খরচ এবং শ্রমিক খরচ

এছাড়াও বিশেষ কিছু খরচ আছে  যা একজন ভাল এস্টিমেটর অবশ্যই লক্ষ রাখবেন যেমন-

 

প্রকল্পের জন্য ব্যাবহৃত কাচামাল ছাড়াও প্রকল্পের কাজ সম্পাদনের জন্য প্রয়োজন কিছু

স্ট্যাশনারী পন্য , প্রয়োজন বিশেষ বিশেষ কারনে অনুরপ অন্যান্য প্রকল্প পরিদর্শনের জন্য ভ্রমন

ভাতা। আইনগত সহায়তার জন্যও প্রাক্কলনকারী একটি নির্দিষ্ট অর্থ বরাদ্দ রাখবেন। প্রকল্পের

কাজে সরাসরি যুক্ত শ্রমিকদের সুপারভাইজ করার জন্য উপসহকারী প্রকৌশলী,প্রকৌশলী, এবং

উর্ধতন অন্যান্য অফিসারসদের বেতন ভাতা নির্ধারন করবেন। অফিস ভাড়া, গোডাউন ভাড়া,

খরচ কমাতে বিভিন্ন আইডিয়া সংগ্রহ ভাতা,বিজ্ঞাপন খরচ, ডাকমাশুল, বিমা খরচ, অনাকাঙ্ক্ষিত

প্রাকৃতিক দুর্যোগের জন্য একটি অর্থ নির্ধারন করবেন। সকল খরচ নির্ধারনের পর প্রতিষ্ঠানের

লাভের জন্য একটি নির্দিষ্ট অর্থ নির্ধারন করতে হবে। আনুমানিক ২০%। 

 

মেজারমেন্ট বুক

 

প্রকল্পের প্রতিটি কাজের সুষ্ঠ হিসাব রাখার জন্য প্রয়োজন মেজারমেন্ট বুক। মেজারমেন্টবুকে

প্রতিটি কাজের যথাযত তথ্য যথা নিয়মে পুরন করতে হবে, যা একটি প্রকল্পের অগ্রগতি, অবনতি

ইত্যাদি মুল্যায়ন করতে সহায়ক হবে।  মেজারমেন্টবুক আইনি দলিল হিসেবেও সাব্যস্ত হতে

পারে।

একজন দক্ষ পরিককল্পনাকারী এবং প্রাক্কলনকারী সমসাময়িক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন

প্রকল্পের কাজের ব্যাপারেও নজর রাখেন। অন্যান্য প্রতিষ্ঠান কোন কোন বিষয়ে প্রতিবন্ধকতা

কিভাবে উত্তির্ন হয়েছে সে বিষয়েও তিনি তথ্য সংগ্রহ করে থাকেন।

 

পেশাদারী দক্ষ পরিকপ্লনাকারী  এবং প্রাক্কলনকারী হওয়ার জন্য ছাত্রজীবন থেকেই তোমাকে

হতে হবে বিভিন্ন বিষয়ে দক্ষ। বিভিন্ন বিষয়ে দক্ষতা অর্জনের জন্য সহায়তা নিতে পারো বাংলাদেশ

স্কিল ডেভেলপমেন্ট ইন্সটিটিউটের। দক্ষতা এবং মান উন্নয়ন নিয়ে প্রতিষ্টানটি সফলতার সাথে কাজ

করে যাচ্ছে।

                            https://bsdi-bd.org/

পরিকপ্লনা এবং প্রাক্কলন অতি উচ্চমানের এবং সংবেদনশীল একটি কাজ। প্রকৃতপক্ষে একটি

প্রতিষ্টানের লাভ এবং লস নির্ভর করে দক্ষ পরিকল্পনাকারী এবং প্রাক্কলনকারীর উপর।

সুতরাং দক্ষ পরিকল্পনাকারী এবং প্রাক্কলনকারীর উপর প্রতিষ্ঠানের একটি বিশেষ সুনজর থাকে।

তুমিও হতে পারো একজন দক্ষ পরিকল্পনাকারী এবং প্রাক্কলনকারী, এজন্য প্রয়োজন পরিকল্পনা

এবং প্রাক্কলন বিষয়ক একাডেমিক নলেজের পাশাপাশি ব্যাবহারিক ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ জ্ঞান এবং

পর্যাপ্ত পরিমান তথ্য এবং উপাত্ত।

 

লেখকঃ নাহিদুল ইসলাম

বিভাগীয় প্রধান, ইলেকট্রিক্যাল

ড্যাফোডিল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট

Comments

Sign in to comment