১৩০ কিলোভোল্ট  ট্রান্সমিশনের ময়নাতদন্ত / Autopsy of 130 kV transmission

 

মনে করুন, ঈদের ছুটি পেয়ে গ্রামের বাড়ি বেড়াতে যাচ্ছেন।মনস্থির করলেন ট্রেনযোগে বাড়ি যাবেন। নিজের জন্য কেটে নিলেন ট্রেনের একটি টিকেট। নিজের কামরায় গিয়ে বসতেই চালু হল ট্রেন। ধীরে ধীরে ট্রেনের গতি বাড়ছে এবং ট্রেনটি গ্রাম বাংলার সুন্দর প্রকৃতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। আর সবুজ মাঠের মধ্যে একটি চোখ জুড়ানো ১৩২ কিলোভোল্টের ট্রান্সমিশন লাইন আপনার চোখে পড়ল। আপনি বেশ মনযোগ দিয়েই ট্রান্সমিশন লাইনটিকে পর্যবেক্ষণ করতে লাগলেন। কত ইকুইপমেন্ট চোখে পড়ল আপনার। কোনটি সম্পর্কে আপনি অবগত আর কোনটি সম্পর্কে নয়। তাহলে চলুন একটি ১৩২ কিলোভোল্ট ট্রান্সমিশন লাইনে কি কি ডিভাইস/ইকুইপমেন্ট থাকে তা বিস্তারিতভাবে আলাপ হবে।

 

ক্রসআর্ম

  • ক্রসআর্ম সাধারণত স্টিলের এংগেল সেকশন বা কাঠের হতে পারে। 
  • টাওয়ারে নাট-বোল্ট, ক্ল্যাম্প ইত্যাদির সাহায্যে লাইন ইন্সুলেটর আটকানো হয়ে থাকে। 
  • মানুষের দুই হাতের ন্যায় টাওয়ারেরও দুই হাত হল ক্রসআর্ম যা ইন্সুলেটর ধারণ করে। 

 

 

 

 

ইন্সুলেটর

  • টাওয়ারের মেটাল বডি যেন শর্ট সার্কিট না হয়ে যায় সেজন্য টাওয়ারের ক্রসআর্মের সাথে ইন্সুলেটর লাগানো হয়ে থাকে। 
  • সাধারণত ট্রান্সমিশন লাইনে সাসপেনশন টাইপ ইন্সুলেটর ব্যবহার করা হয় যা গত আর্টিকেলেও আপনাদের সাথে শেয়ার করেছিলাম। 
  • আর ১৩২ কিলোভোল্ট ট্রান্সমিশন লাইনে সাধারণত ছয়টি ইন্সুলেটর লাগানো থাকে। 
  • এই ইন্সুলেটর যখন উলম্বভাবে থাকে তখন তাকে সাসপেনশন টাইপ ইন্সুলেটর এবং যখন আনুভূমিকভাবে থাকে তখন তাকে স্ট্রেইন টাইপ ইন্সুলেটর বলে।

 

 

 

 

 

 

 

কন্ডাক্টর 

  • ট্রান্সমিশন লাইনে বেশিরভাগ এলুমিনিয়াম উপাদানের ACSR (Aluminium Core Strained Rainforced) ক্যাবল ব্যবহার করা হয়। 
  • কন্ডাক্টর বা পরিবাহীর মাধ্যমেই বিদ্যুৎ একস্থান থেকে অন্যস্থানে প্রবাহিত হতে পারে। 
  • ডাবল সার্কিট ট্রান্সমিশন লাইনের ক্রসআর্মের দুপাশে ছয়টি কন্ডাক্টর থাকে।

 

গার্ড ওয়্যার 

  • যখন পাওয়ার লাইন টেলিফোন লাইন কিংবা কোন মোবাইল টাওয়ার অতিক্রম করে তখন সেই পাওয়ার লাইনগুলোর উপরে এবং নীচে গার্ড ওয়্যার ব্যবহার করা হয়। 
  • এগুলো আর্থের সাথে সংযোগ থাকে।

 

 

 

 

বার্ড গার্ড 

  • এগুলো ইবোনাইটের তৈরি দাঁতের ন্যায় লম্বা প্লেট বিশেষ। 
  • পাখি ইন্সুলেটর পিন এবং কন্ডাক্টরের সাথে যেন শর্ট সার্কিট না তৈরি করতে পারে সেজন্য এটি ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

                                                                            

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

বার্ড গার্ড

ভাইব্রেশন ড্যাম্পার

                                                                              

সাধারণত বাতাসের দরুণ ট্রান্সমিশন লাইনের কম্পন এড়াতে ভাইব্রেশন ড্যাম্পার ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

 

জাম্পার

                                                        

 

নদীর দুই পাড়ের লোক যেমন সেতুর মাধ্যমে একে অপরের সাথে যোগাযোগ স্থাপন করে তেমনিভাবে জাম্পার লাইনের সাহায্যে বিদ্যুৎ টাওয়ার বডির এক পাশ থেকে অন্য পাশে স্থানান্তরিত হতে পারে।

 

অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার 

  • ট্রান্সমিশন লাইনের শীর্ষবিন্দুতে একটি সরু তার লাগানো থাকে। 
  • এটি মূলত অপটিক্যাল ফাইবার যার সাহায্যে সাবস্টেশন টু সাবস্টেশনের মধ্যে SCADA (Supervisory Control & Data Acquisition System) পদ্ধতিতে যোগাযোগ রক্ষিত হতে পারে। 
  • এছাড়া এটি বজ্রপাতের দরুণ সৃষ্ট অতিরিক্ত প্রবাহকেও দমন করতে পারে। 
  • আর এই দুই কাজে অংশগ্রহণ করে বলেই একে বলা হয় অপটিক্যাল গ্রাউন্ড ওয়্যার।

 

 

ট্রান্সমিশন লাইন নিয়ে বরাবরই আমাদের কৌতূহলের শেষ নেই। আর সেসমস্ত কৌতূহল মেটানোর জন্য আজ আমি চেষ্টা করেছি। কোন ভুল-ত্রুটি থাকলে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। প্রিয় পাঠকবৃন্দ, আপনাদের অনুপ্রেরণায় আমি বারবার লেখার সাহস পাই। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন। ইনশাআল্লাহ, খুব দ্রুত নতুন কোন বিষয় নিয়ে আবারো আসব আপনাদের সামনে। সেই পর্যন্ত সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন। আর এই বাড়িতে সবাই ঘরে থাকুন, আপনার ও আপনার পরিবারের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখুন।

 

লেখকঃ মোঃ আব্দুল্লা-আল-মামুন রুপম

ইন্সট্রাকটর, ইলেকট্রিক্যাল

ড্যাফোডিল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট

Comments

Sign in to comment