রিলে বাবাজির চমৎকার

প্রিয় বন্ধু সকল। আশা করছি সকলে অনেক ভালো আছেন। রিলে নামটি অনেকেই আমরা শুনেছি এবং এর কার্যাবলিও হয়তো জানি। কিন্তু আজ আমি আপনাদের সাথে রিলে বাবাজিকে একটু ভিন্ন উপায়ে আপনাদের সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে চাই। চলুন প্রথমে একটি গল্প শুনে আসা যাক।

 

রিলে বাবাজির গল্প

 

অনেক বছর পূর্বে এক গ্রামে এক বাবার আবির্ভাব হল। বাবাজির নাম হল রিলে। বাবাজির চমৎকার দেখে সবাই ত পুলকিত হয়ে গেল। অনেক রকমের কারসাজিই বাবার আয়ত্তে আছে। যেমনঃ মুখের শব্দ দিয়েই ইনক্যান্ডিসেন্ট বাতি জ্বালানোএকটি নির্দিষ্ট সময় পরপর বাতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে অন অফ করা। সেই গ্রামে আবির্ভাব হল এক ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারের যে বাবার সব কারসাজি সবার সামনে তুলে ধরল। রিলে বাবাজির সব রহস্য উদঘাটন করে দিল।

 

রিলে বাবাজির আসল পরিচয় কি?

 

রিলে বাবাজি মূলত অলৌকিক কোন শক্তি নাএটি এক ধরনের ইলেকট্রোম্যাগনেটিক সুইচ যা অটোমেটিকভাবে লোডকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারে।

 

তাহলে আমাদের বাসা বাড়ির সুইচ বাবা কি দোষ করলউনিও ত লোডকে নিয়ন্ত্রণ করেসুইচ বাবা লোডকে নিয়ন্ত্রণ করলেও স্বয়ংক্রিয়ভাবে কাজ করতে পারে না। তাকে এক্সটার্নালি অপারেট করতে হয়। কিন্ত রিলে বাবাজি স্বয়ংক্রিয়ভাবে কাজ করতে পারে।

 

রিলে ইলেকট্রোম্যাগনেটিক সুইচ যেখানে ইলেকট্রোম্যাগনেট এনার্জাইড হয়ে সুইচিং এর কার্যাবলি পরিচালনা করে থাকে। অন্যদিকে সুইচে ইলেকট্রোম্যাগনেটিক সিস্টেম থাকেনা। নরমাল স্প্রিং বেইজ সিস্টেম ডেভেলাপ করা থাকে

 

এবার জানব রিলে বাবাজির জীবনবৃত্তান্ত। রিলে বাবাজির দুই সাহায্যকারী। যথাঃ

 

  • ইলেকট্রোম্যাগনেটিক অংশ
  • সুইচিং অংশ

 

রিলে বাবাজির মূল কাজ কি?

 

  • রিলে বাবাজির দ্বারা প্রয়োজন অনুসারে পাওয়ার সরবরাহ করা যায়।
  • রিলের বাবাজির সাহায্যে খুব সহজেই বৈদ্যুতিক সিস্টেমের কোন ত্রুটি হয়েছে কিনা সেটা নির্ধারণ করা যায়।
  • বৈদ্যুতিক সিস্টেমের কোন ত্রুটি দেখা দিলে রিলে বাবাজি তার অলৌকিক অপারেশনের মাধ্যমে খুব দ্রুত ত্রুটি হওয়া অংশ সরবরাহ থেকে বিচ্ছিন্ন করা যায়।
  • রিলে অপারেশনের মাধ্যমে ত্রুটি হওয়া অংশকে সহজেই সনাক্ত করা যায়।
  • রিলে অপারেশনের মাধ্যমে সহজেই ত্রুটির কারন বের করা যায়।

 

রিলের প্রকারভেদ

 

আমাদের মাঝে প্রচলিত রিলেগুলো সাধারণত তিন (৩) ধরনের হয়া থাকেএই তিন ধরনের রিলে আমরা বাজারে পাই।

 

  1. SPST (Single Pole Single Throw): SPST রিলেগুলোর সাধারানত ৪টি থাকে।
  2. SPDT  (Single Pole Double Throw): SPDT রিলেগুলোর সাধারানত ৫টি থাকে।
  3. DPDT  (Double Pole Double Throw): DPDT রিলেগুলোর সাধারানত ৮টি থাকে।

 

উপরের তিন প্রকার রিলের মাঝে SPST এবং DPDT এই দুই প্রকার রিলে কম পাওয়া যায়। সাধারনত SPDT রিলে প্রায় সব জায়গাতেই পাওয়া যায় আর এই রিলে দিয়েই আমরা বেশের ভাগ কাজ করে থাকি। উল্লেখ্য যেরিলে এসি এবং ডিসি উভয় সোর্সেই কাজ করে থাকে।

 

রিলের বিস্তারিত ময়নাতদন্ত

সাধারণত SPDT (Single Pole Double Throw) রিলেগুলো বহুলভাবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। তাই এই রিলের বিস্তারিত ময়নাতদন্ত তুলে ধরা হল। উপরেই বলা হল যে, এই ধরনের রিলের পিন সংখ্যা পাঁচটি। নিচে পিনগুলোর পরিচিতি তুলে ধরা হলঃ

Pin no 1:

সাধারণত পিন নাম্বার ১ হল কয়েল (+/-)। সাধারনত যে ভোল্টেজে রিলে কয়েল চালু হয় সেটাই রিলের অপারেটিং ভোল্ট। কয়েলের যে পরিমান মান দেয়া থাকে সেই মান খেয়াল করে রেজিস্টর এবং ক্যাপাসিটর এর সাহায্যে সংযোগ দেয়া হয়। সাধারানত রিলের কোন পজেটিভ অথবা নেগেটিভে নির্দিষ্ট করা থাকেনা অর্থাৎ এই কয়েলের দুই প্রান্তের যেকোনোটাই সরবরাহের সাথে সংযোগ করা যায়

Pin no 2:

পিন নাম্বার ২ ও হল কয়েল (+/-)। উপরের ১ নং এ বর্ণনা করা কয়েলের মতো একই কাজ করে ২নং পিন

Pin no 3:

পিন নাম্বার ৩ হল কমন (Common) পিন। কমন পিন আবার কি? এটা এমন একটা পিন যেটার সাথে নরমালি ওপেন আর নরমালি ক্লোজ পিন সংযোগ করা হয়। তার মানে হচ্ছে এটা নরমালি ওপেন আর নরমালি ক্লোজ পিনের মাঝে যেকোনোটা সংযোগ দিতে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। তাই এক কথায় এই পিনকে কমন (Common) পিন বলা হয়

Pin no 4:

পিন নাম্বার ৪ হল NC (নরমালি ক্লোজ)। সাধারণ অবস্থায় নরমালি ক্লোজ পিন অন অর্থাৎ সংযোগ দেয়া অবস্থায় থাকে। রিলে কয়েলে বিদ্যুৎ সংযোগ করা না হলে নরমালি ক্লোজ পিন এটার কমন পিনের সাথে শর্ট অবস্থায় অর্থাৎ সংযোগ দেয়া অবস্থায় থাকে

Pin no 5:

পিন নাম্বার ৫ হল NO (নরমালি ওপেন)। সাধারণ অবস্থায় নরমালি ওপেন পিন বন্ধ অবস্থায় থাকে। রিলে কয়েলে বিদ্যুৎ সংযোগ করা না হলে নরমালি ওপেন পিন এটার কমন পিনের সাথে ওপেন অবস্থায় অর্থাৎ খোলা অবস্থায় থাকে। যখন বিদ্যুৎ সংযোগ করা হয় তখন এই পিন কমন পিনের সাথে সংযুক্ত হয়। সুইচিং এর কাজ সাধারনত কমন পিন আর নরমালি ওপেন পিন এই দুই পিনের সংযোগের মাধ্যমে করা হয়। নীচে ময়নাতদন্তের ছবি দেয়া হল। ব্যাপারটি আরো ক্লিয়ার হবার জন্য

৫ পিন রিলের ময়নাতদন্ত

৮ পিনবিশিষ্ট রিলের পরিচিতিঃ

  • ২ টি কয়েল পিন যেখানে তার রেটেড ভোল্টেজ এসি/ডিসি এপ্লাই করা হবে। উল্লেখ্য যে, রিলে কয়েলের পোলারিটি নেই। কয়েল পিনের দুই প্রান্তের যেকোন একটিকে পজিটিভ/নেগেটিভ ধরে কাজ করা যায়
  • দুইটি কমন পিন
  • ২ টি নরমালি ওপেন পিন
  • ২ টি নরমালি ক্লোজ পিন

৮ পিনের রিলে

১১ পিনবিশিষ্ট রিলের পরিচিতিঃ

  • ২ টি কয়েল পিন যেখানে তার রেটেড ভোল্টেজ এসি/ডিসি এপ্লাই করা হবে
  • তিনটি কমন পিন
  • ৩ টি নরমালি ওপেন পিন
  • ৩ টি নরমালি ক্লোজ পিন

১১ পিনের রিলে

১৪ পিনবিশিষ্ট রিলের পরিচিতিঃ

  • ২ টি কয়েল পিন যেখানে তার রেটেড ভোল্টেজ এসি/ডিসি এপ্লাই করা হবে
  • চারটি কমন পিন
  • ৪ টি নরমালি ওপেন পিন
  • ৪ টি নরমালি ক্লোজ পিন

১৪ পিনের রিলে

কেন ৫, ৮, ১১, ১৪ এই সংখ্যক পিন দেখা যায়?

অনেকের মনে নিশ্চয়ই প্রশ্ন কাজ করছে যে কেন বা কিভাবে রিলে পিন গুলো ৫, ৮, ১১, ১৪ হল? এর নেপথ্যে কোন ব্যাখ্যা আছে কি? জি অবশ্যই আছে। রিলেতে যে কমন পিন থাকে এই কমন পিন সংখ্যার উপর ভিত্তি করেই আপনারা রিলের পিন সংখ্যা বের করতে পারবেন

কিভাবে?

সুইচ যেমন যেকোন লোডের অন/অফ দুই ফেজকে নিয়ন্ত্রণ করে তেমনি রিলের এই কমন টার্মিনাল রিলের নরমালি ওপেন অথবা নরমালি ক্লোজ এই দুই কন্ডিশনকে নিয়ন্ত্রণ করে। এখন আপনারাই হিসেব করুন যদি একটি কমন টার্মিনাল দুটি (১ টি NO, ১ টি NC) টার্মিনাল নিয়ন্ত্রণ করে থাকে তাহলে পিন সংখ্যা দাঁড়ায় = ১ টি কমন + ১ টি NO + ১ টি NC + কয়েলের ২ পিন = ৫ পিন

আবার দুইটি কমন টার্মিনাল চারটি (২ টি NO, ২টি NC) টার্মিনাল নিয়ন্ত্রণ করে থাকে তাহলে পিন সংখ্যা দাঁড়ায় = ২ টি কমন + ২ টি NO + ২ টি NC + কয়েলের ২ পিন = ৮ পিন

আবার তিনটি কমন টার্মিনাল ছয়টি (৩ টি NO, ৩ টি NC) টার্মিনাল নিয়ন্ত্রণ করে থাকে তাহলে পিন সংখ্যা দাঁড়ায় = ৩ টি কমন +৩ টি NO + ৩ টি NC + কয়েলের ২ পিন = ১১ পিন

আবার চারটি কমন টার্মিনাল চারটি (৪ টি NO, ৪ টি NC) টার্মিনাল নিয়ন্ত্রণ করে থাকে তাহলে পিন সংখ্যা দাঁড়ায় = ৪ টি কমন + ৪ টি NO + ৪ টি NC + কয়েলের ২ পিন = ১৪ পিন

এবার পিন সংখ্যার হিসেবটি আপনাদের কাছে ক্লিয়ার হয়েছে বলে আশা রাখি

এবার প্রশ্ন হতে পারে, পিন সংখ্যা বেশি হলে কি সুবিধা পাওয়া যায়? ইন্ড্রাস্ট্রিতে কি কাজে বেশি সংখ্যাক পিনের রিলে ব্যবহার করা হয়ে থাকে?

সুবিধা এবং উদ্দেশ্য

পিন সংখ্যা বেশি মানেই কমন টার্মিনাল বেশি। আর কমন টার্মিনাল বেশি মানেই নরমালি ওপেন- নরমালি ক্লোজ যুগল বেশি হবে। আর এই যুগলের আধিক্য মানেই আপনি অধিক লোডকে একটি রিলে দিয়েই নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন। ইন্ড্রাস্ট্রিতে অনেকগুলো লোডকে ইন্টারলকিং সিস্টেমের আওতায় আনতে মূলত বেশি সংখ্যক পিনের রিলে ব্যবহার করা হয়ে থাকে

ইন্টারলকিং সিস্টেম

মনে করুন, দুই জন লোক ফোনে কথা বলছে। একজন কথা বললে অন্যজন চুপ থাকে। তার মানে কথা বললে একজনই কথা বলবে। তেমনি ইন্ডাস্ট্রিতে যদি কোন কাজে দুটো মোটর ব্যবহার করা হয় তাহলে একটি চালু থাকলে অপরটি বন্ধ থাকবে। তারপর প্রথমটি অফ হলে অপরটি অটোমেটিকভাবে চালু হবে। এই সিস্টেমকেই বলা হয় ইন্টারলকিং সিস্টেম। আর এই দুইটি মোটরকে নিয়ন্ত্রণ করতে বেশি সংখ্যক পিনের রিলে দরকার হবে

 

লেখকঃ মোঃ আব্দুল্লা-আল-মামুন রুপম

ইন্সট্রাকটর, ইলেকট্রিক্যাল

ড্যাফোডিল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট

Comments

Sign in to comment